জাতীয় নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের ব্রিফিং পাবেন বাইডেন

জাতীয় নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের ব্রিফিং পাবেন বাইডেন

যুক্তরাষ্ট্রের নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনকে এখনও মেনে নিতে প্রস্তুত নন দেশটির বর্তমান প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তবে ট্রাম্পের আপত্তি উপেক্ষা করেই আগামী ২০ জানুয়ারি শপথ গ্রহণের ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী বাইডেন শিবির। ইতোমধ্যে ট্রানজিশন টিম গঠনের পাশাপাশি হোয়াইট হাউজের নতুন চিফ অব স্টাফও বাছাই করে ফেলেছেন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট। শুক্রবার ট্রানজিশন টিমের কর্মকর্তা জেন সাকি জানিয়েছেন, আগামী সপ্তাহে জাতীয় নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞদের ব্রিফিং পাবেন বাইডেন।

জেন সাকি বলেন, নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট এখনও পর্যন্ত শ্রেণীবদ্ধ গোয়েন্দা ব্রিফিং পাচ্ছেন না। এটি তার সরকার পরিচালনার প্রস্তুতিতে বিঘ্ন সৃষ্টি করছে।

সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে জেন সাকি বলেন, বাইডেন নির্বাচিত হওয়ার পর এরইমধ্যে ছয় দিন পার হয়ে গেছে। কিন্তু এখনও পর্যন্ত নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ও ভাইস প্রেসিডেন্ট এবং আমাদের ন্যাশনাল সিকিউরিটি টিম গোয়েন্দা ব্রিফিং পাচ্ছে না। বিশ্বব্যাপী মার্কিন স্বার্থের হালনাগাদ অবস্থা জানতে পারছে না। এটি খুবই উদ্বেগজনক।

এদিকে ট্রাম্প এখনও হার মেনে না নিলেও তার দল রিপাবলিকান পার্টির নেতাদের একটি গ্রুপ ভিন্ন পথে হাঁটছে। সংখ্যায় অল্প হলেও এসব রিপাবলিকান নেতারা বলছেন, নিয়ম অনুযায়ী বাইডেনকে এখনই প্রতিদিনকার গোপনীয় গোয়েন্দা ব্রিফিং সরবরাহ করা উচিত। এসব রিপাবলিকান নেতাদের মধ্যে রয়েছেন ট্রাম্পের গুরুত্বপূর্ণ মিত্র লিন্ডসে গ্রাহামও। তবে কংগ্রেসের বেশিরভাগ রিপাবলিকান নেতাই ট্রাম্পের পক্ষে রয়েছেন।

নির্বাচনে জালিয়াতির অভিযোগে ইতোমধ্যে বেশ কিছু মামলা শুরু করেছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। যদিও তার টিম এখনও কোনও প্রমাণ হাজির করতে পারেনি। বৃহস্পতিবার ডেমোক্র্যাট হাউজ স্পিকার ন্যান্সি পেলোসি বলেছেন, এই অযৌক্তিক সার্কাসের অর্থ করোনাভাইরাস মহামারি অবহেলা করা হয়েছে। তিনি এবং অন্য শীর্ষ ডেমোক্র্যাট নেতারা বাস্তবতা মেনে নিতে রিপাবলিকানদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন।

ট্রাম্পের মতোই বেশিরভাগ রিপাবলিকান নেতা এখনও ডেমোক্র্যাটদের জয় মেনে নিতে পারেননি। কিন্তু অন্তত ডজনখানেক রিপাবলিকান নেতা ইতোমধ্যে বাইডেনকে অভিনন্দন জানিয়েছেন কিংবা স্বীকার করে নিয়েছেন যে, ক্ষমতা হস্তান্তর অবশ্যই হবে।

ডেমোক্র্যাট সিনেটর ক্রিস কুনস জানিয়েছেন, বেশ কয়েকজন রিপাবলিকান নেতা তাকে তাদের পক্ষ থেকে বাইডেনকে অভিনন্দন জানাতে বলেছেন কারণ প্রকাশ্যে তারা তা করতে পারছেন না। অন্যদের মধ্যে রিপাবলিকান সিনেটর লিন্ডসে গ্রাহাম বলেছেন, বাইডেনকে এখন থেকেই গোপনীয় দৈনন্দিন নথিপত্র দেওয়া উচিত। তার সঙ্গে একমত পোষণ করেছেন চাক গ্রাসলে, জন করনিন এবং জন থুনে। তবে ট্রাম্প সমর্থকরা বলছেন, বাইডেন আনুষ্ঠানিকভাবে এখনও প্রেসিডেন্ট নন। তাই তার অপেক্ষা করা উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!