শেরপুরে টানা দ্বিতীয় দিনে বৈষম্য নিরসনের দাবিতে হেলথ এসিসট্যান্ট এসোসিয়েশনের কর্মবিরতি পালন

শেরপুরে টানা দ্বিতীয় দিনে বৈষম্য নিরসনের দাবিতে হেলথ এসিসট্যান্ট এসোসিয়েশনের কর্মবিরতি পালন

বুলবুল আহম্মেদ,শেরপুর: শেরপুর জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সামনে স্বাস্থ্যসহকারীদের নিয়োগ বিধি দ্রুত সময়ের মধ্যে সংশোধন করে বেতন বৈষম্য নিরসনের দাবীতে শেরপুর জেলা হেলথ এসিসট্যান্ট এসোসিয়েশনের ডাকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতি পালন শুরু করেছেন স্বাস্থ্য পরিদর্শক, সহকারী স্বাস্থ্য পরিদর্শক ও স্বাস্থ্য সহকারীরা।

২৬ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সকাল থেকে বাংলাদেশ হেল্থ এসিসট্যান্ট এসোসিয়েশন এর এ কর্মসূচী শুরু করা হয়।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, শেরপুর জেলা হেলথ এসিসট্যান্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি মশিউর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার হোসেন,সদর উপজেলা সভাপতি গোলাম কিবরিয়া, সাধারন সম্পাদক জুবাইদুল হক
জেলা দাবি বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক মোঃ রফিকুল ইসলাম, সদস্য-সচিব নাজমুল আলম রানা, উপজেলা দাবি বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক মাহবুবুল হক সদস্য সচিব মনিরুজ্জামান বিপ্লবসহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।
জেলার অন্যান্য উপজেলাতেও একই দাবীতে এ কর্মসূচী পালন করা হচ্ছে।

এসময় বক্তারা বলেন, ১৯৯৮ সালের ৬ ডিসেম্বর মাননীয় প্রধান মন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা আমাদের বেতন বৈষম্য নিরসনের ঘোষনা দেন। অত:পর ২০১৮ সালের ২ জানুয়ারী তৎকালীন মাননীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রী আমাদের ন্যায্যদাবী সমূহ মেনেনিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের নির্দেশ দেন।

চলতি বছরের ২০ ফেব্রুয়ারীতে আমরা হাম-রুবেলা ক্যাম্পেইনের কার্যক্রম বর্জন করলে মাননীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রী মহোদয় ও স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সচিব মহোদয় আমাদের দাবী সমূহ পুনরায় মেনেনিয়ে লিখিত সমঝোতা পত্রে স্বাক্ষর করেন। কিন্তু দু:খ জনক হলেও সত্যি যে, ওই লিখিত সমঝোতা পত্রের সিদ্ধান্ত অজ্ঞাত কারনে অদ্যবধী বাস্তবায়ন করা হয়নি।

তাই আমরা আমাদের ন্যায্যদাবী আদায়ের লক্ষে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে ২৬ নভেম্বর থেকে অনির্দিষ্ট কালের জন্য কর্মবিরতি শুরু করেছি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!