শেরপুরে যুবকদের মাঝে নেতৃত্ব বিকাশের লক্ষ্যে কাজ করছে ইন্সটিটিউট ফর এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইইডি)

শেরপুরে যুবকদের মাঝে নেতৃত্ব বিকাশের লক্ষ্যে কাজ করছে ইন্সটিটিউট ফর এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইইডি)

স্টাফ রিপোর্টার: শেরপুর জেলার সদর উপজেলার ছয়টি ইউনিয়ন ও পৌরসভা জুড়ে ইউকে এইডের অর্থায়নে মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহায়তায় পরিচালিত ইয়ুথ অ্যাজ চেঞ্জ এজেন্ট ফর সোসাল কোহেশন প্রজেক্ট শেরপুরে বাস্তবায়ন করছে ইন্সটিটিউট ফর এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইইডি)।

আইইডি’র প্রোগ্রাম অফিসার ইমতিয়াজ চৌধুরী শৈবাল জানায় জানায়, শেরপুর সদর পৌরসভাসহ চরশেরপুর,পাকুড়িয়া,ধলা,গাজিরখামার,ভাতশালা ও কামারিয়া ইউনিয়নের ১৫ থেকে ৩০ বছরের যুব নর-নারীদের নেতৃত্ব বিকাশে কাজ করছে আইইডি।
৩ হাজার ৫ শত যুব নর-নারীরকে জীবনমূখী প্রশিক্ষণ প্রদান অব্যাহত রয়েছে।১ হাজার ৫ শত যুব নর-নারীকে সামাজিক নেতা হিসেবে তৈরি করা ৮০ জন যুব নর-নারীকে বিভিন্ন সেবামূলক প্রতিষ্ঠানের কমিটিতে সম্পৃক্ত করা এবং
কর্ম এলাকায় যুব নর-নারীদের সক্রিয় নাগরিক হিসেবে গড়ে তুলতে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে এ সংগঠনটি।


এছাড়াও সরকারি ও বেসরকারি বিভিন্ন সংস্থার সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে যুব কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে আত্মকর্মসংস্থানে সৃষ্টির কাজ করে যাচ্ছে তারা।
সামাজিক বিভিন্ন উদ্যোগ গ্রহণ ও উদ্বুদ্ধ করণের মাধ্যমে বিভিন্ন অসামাজিক কার্যকলাপ যেমন মাদক,জুয়া, দূর্নীতি,বাল্যবিবাহ,নারীর ও শিশুর প্রতি সহিংসতা এবং অন্যান্য সামাজিক অনাচার প্রতিরোধে স্থানীয় যুবদের ঐক্যবদ্ধ করে সামাজিক ঐক্য সৃষ্টি করে চলেছে।
নারী-পুরুষ সমতা, সিদ্ধান্ত গ্রহণে নারীর অংশীদারত্ব নিশ্চিত করা, স্বাস্থ্যসম্মত পরিবেশ ও সম্প্রীতি বজায় রাখতে এবং স্বেচ্ছাসেবী মনোভাব বিকাশ করার লক্ষ্যে যুবকদের উদ্বুদ্ধ করতে ও
সমাজের প্রান্তিক জনগোষ্ঠী যেমন ক্ষুদ্র নৃতাত্ত্বিক জনগোষ্ঠী, দলিত, হিজড়া ইত্যাদি জনগোষ্ঠীকে সমাজের মূল শ্রোত ধারায় আনতে ও আন্তঃধর্মীয় সম্প্রতি বজায় রাখতে সামাজিক-সাংস্কৃতিক কার্যক্রম পরিচালনা ও উদ্ধুদ্ধ করণের মাধ্যমে সামাজিক সম্প্রীতি নিশ্চিত কল্পে যুবদের নিয়ে কাজ করে যাচ্ছে ইন্সটিটিউট ফর এনভায়রনমেন্ট অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট (আইইডি)
এবং জেলা পুলিশের করোনা ইমার্জেন্সি রেসপন্স টিমের মাধ্যমে খাদ্য সামগ্রী ও প্রয়োজনীয় ঔষধ বিতরণ, স্বেচ্ছায় ধানকাটাসহ সচেতনতা মূলক বিভিন্ন কর্মকাণ্ডে নিয়মিত অংশগ্রহণ করা ও
জেলা প্রশাসনের পৃষ্ঠপোষকতায় পরিচালিত করোনা কালীল অনলাইন স্কুল শেরপুরের পরিচালনায় এই প্রকল্পের যুব সদস্যরা অগ্রগামী ভূমিকা পালন করে চলেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!