সাংবাদিক রোজিনার নিঃশর্ত মুক্তিসহ মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে নকলায় মানববন্ধন

সাংবাদিক রোজিনার নিঃশর্ত মুক্তিসহ মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবীতে নকলায় মানববন্ধন

নকলা (শেরপুর) প্রতিনিধি:পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে সচিবালয়ে হেনস্তা ও শারীরিক নির্যাতনের স্বীকার জ্যেষ্ঠ সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার করে কারাগারে প্রেরণের প্রতিবাদসহ তার নিঃশর্ত মুক্তির দাবি ও এঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে বিচারের আওতায় আনতে শেরপুরের নকলা প্রেস ক্লাবের উদ্যোগে প্রবিতাবাদ-মানববন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

২০ মে বৃহস্পতিবার নকলা থানার সামনে ঢাকা-শেরপুর মহাসড়কে সরকারের নির্দেশনা মোতাবেক শারীরক দূরত্ব বজায় রেখে ও স্বাস্থ্য বিধি মেনে ঘন্টা ব্যাপী এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। এ মানববন্ধনের সাথে জেলা ও উপজেলার বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন একাত্মতা ঘোষনা করেন। নকলা প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি খন্দকার জসিম উদ্দিন-এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন নকলা প্রেসক্লাবের সভাপতি মো. মোশারফ হোসাইন।

এ মানববন্ধন চলাকালে বক্তব্য রাখেন, নকলা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোশাররফ হোসেন সরকার বাবু, যুগ্ম সাধারন সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, সদস্য আলহাজ্ব মহবুবর রহমান, আব্দুর রফিক, মো. ফারুকুজ্জামান ও মোফাজ্জল হোসেন; কবি সংঘ বাংলাদেশ-এর কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি বিশিষ্ট কবি কলামিষ্ট তালাত মাহমুদ, নকলা ইয়্যুথ রিপোর্টার্স ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক সিমানুর রহমান সুখন, নকলা অদম্য মেধাবী সহায়তা সংস্থার সাধারন সম্পাদক নাসির উদ্দিন, রক্ত সৈনিক বাংলাদেশ নকলা শাখার সাধারন সম্পাদক মকিব হোসেন মামুন, নকলা প্রবীণ ও প্রতিবন্ধী হিতৈষী সংস্থার সভাপতি আসাদুজ্জামান সৌরভ, বিডি ক্লিন নকলা শাখার পক্ষে মোকছেদুল মমিন, নকলা যুবশক্তির সভাপতি রেজাউল হাসান সাফিত, ছাত্র কল্যান ফেডারেশন শেরপুর জেলা শাখার সহ-সভাপতি আব্দুল্লাহ আল আমিন প্রমুখ।

মানববন্ধন চলাকালে বক্তারা সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের নিঃশর্ত মুক্তি ও মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং ওই ঘটনায় জড়িতদের চিহ্নিত করে কঠোর শাস্তি দাবি করেন। দৈনিক প্রথম আলো পত্রিকার সাংবাদিক, যিনি সম্প্রতিক স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের একজন সরকারি আমলা কর্তৃক হেনস্তা, অমানবিক নির্যাতন ও স্বাধীন সাংবাদিকতার প্রতিবন্ধকতা আইনের নামে রাষ্ট্রের নিরাপত্তার বিঘ্নিত হওয়ার অজুহাতে একজন দুর্নীতিগ্রস্ত ব্যক্তির অপরাধ ঢাকতে মিথ্যা মামলায় জড়ানোর ঘটনার তীব্র নিন্দা জানান তারা। তারা বলেন, রোজিনা ইসলাম একজন সৎ, মেধাবী ও সাহসী সাংবাদিক। স্বাস্থ্যখাত নিয়ে বেশ কয়েকটি অনুসন্ধানী নিউজ করার কারণেই তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের রোষানলে পড়েছেন। তিনি সুনামের সাথে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে দেশের দুর্নীতিগ্রস্ত রাঘব বোয়ালদের দুর্নীতির চিত্র উন্মোচন করে দেশের উন্নয়নে দৃঢ প্রত্যয়ে কাজ করে যাচ্ছেন।

সাংবাদিক নেতারা তাদের বক্তব্যে বলেন, রোজিনা ইসলাম সৎ, মেধাবী ও সাহসী অনুসন্ধানী একজন সাংবাদিক। স্বাস্থ্যখাত নিয়ে বেশ কয়েকটি অনুসন্ধানী নিউজ করার কারণেই তিনি স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের রোষানলে পড়েছেন বলে তারা মন্তেব্য করেন। তিনি সুনামের সাথে দায়িত্ব পালনের মাধ্যমে দেশের দুর্নীতিগ্রস্ত রাঘব বোয়ালদের দুর্নীতির চিত্র উন্মোচন করে দেশের উন্নয়নে দৃঢ প্রত্যয়ে কাজ করে যাচ্ছেন। ঘটনার সঙ্গে জড়িত স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মচারীদের অসৌজন্যমূলক আচরণের তীব্র্র নিন্দা জানিয়ে সাংবাদিকরা বলেন, সাংবাদিক রোজিনা ইসলামের সঙ্গে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা ও কর্মচারীদের অসৌজন্যমূলক আচরণ নিন্দনীয় ও দুঃখজনক। মিথ্যা অভিযোগ দিয়ে রোজিনাকে পুলিশের কাছে হস্তান্তর এবং তার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা আরও নিন্দনীয়। তারা বলেন, স্বাস্থ্য বিভাগের অতিরিক্ত সচিব কাজী জেবুন্নেছা বেগম ও তার সহযোগি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে শাস্তি দিতে হবে।

স্বাস্থ্য বিভাগ তাদের অনিয়ম, দুর্নীতি, স্বেচ্ছাচারিতা ও লুটপাটের তথ্য আড়াল করতে সাংবাদিক রোজিনা ইসলামকে পরিকল্পিতভাবে সাজানো মামলায় ফাঁসানো হয়েছে বলে তাদের দাবী। তাকে প্রায় ৬ ঘণ্টা অবরুদ্ধ রেখে শারীরিক ও মানসিক নিপীড়নের মতো জঘন্যতম ঘটনা গণমাধ্যমের কণ্ঠরোধ করার শামিল বলে মন্তব্য করেন বক্তারা। তারা বলেন, জনসম্মূখে সত্য ঘটনা তুলে ধরতে ও দুর্নীতিসহ যেকোন অসঙ্গতি গণমাধ্যমে প্রকাশে সাংবাদিকদের কলম চলছে এবং চলবে। কোন অপশক্তিই বস্তুনিষ্ট লেখকের কলম থামাতে পারবে না।

বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের বাংলাদেশে তথা বঙ্গবন্ধুর কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দ্রুত গতিতে সামনের দিকে এগিয়ে চলা এদেশে কোন প্রকার দুর্নীতি কারও কাম্য নয়। অতএব দেশ-জাতির কল্যাণে সরকারের উন্নয়ন মূলক কর্মকান্ড গুরো বিশ্ববাসীর কাছে তুলে ধরে সরকারের ভাবমূর্তি অক্ষুন্ন রাখতে উপজেলায় কর্মরত সাংবাদিকগন সদা তৎপর রয়েছে বলে নকলা প্রেস ক্লাবের নেতৃবৃন্দরা জানান। তবে সাংবাদিক নির্যাতন বন্ধসহ সব ধরনের কালাকানুন, প্রকাশ্য-অপ্রকাশ্য বাধা ও হুমকির অবসান ঘটাতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ খুব দ্রুত পদক্ষেপ নিবেন বলে তাদের প্রত্যাশা।

এ মানববন্ধনে নকলা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক মো. ফজলে রাব্বী রাজন ও মো. নূর হোসেন, দপ্তর সম্পাদক সেলিম রেজা, প্রচার-প্রকাশনা সম্পাদক নাহিদুল ইসলাম রিজন, কার্যকরী সদস্য মোশাররফ হোসেন শ্যামল ও সুজন মিয়াসহ নকলা প্রেসক্লাব ও নকলা ইয়্যুথ রিপোর্টার্স ক্লাবের অন্যান্য সদস্যবৃন্দ, নকলা অদম্য মেধাবী সহায়তা সংস্থা, নকলা প্রবীণ ও প্রতিবন্ধী হিতৈষী সংস্থা, রক্ত সৈনিক বাংলাদেশ নকলা শাখা, বিডি ক্লিন নকলা শাখা, নকলা যুবশক্তি ও ছাত্র কল্যান ফেডারেশনের মতো বিভিন্ন সংগঠনের নেতৃবৃন্দরা অংশ নিয়েছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published.