শেরপুরে গার্মেন্টস মালিক সমিতির কমিটি গঠন নিয়ে তালবাহনার অভিযোগ।। নির্বাচনের দাবি অধিকাংশের

শেরপুরে গার্মেন্টস মালিক সমিতির কমিটি গঠন নিয়ে তালবাহনার অভিযোগ।। নির্বাচনের দাবি অধিকাংশের

শেরপুরে গার্মেন্টস মালিক সমিতির কমিটির গঠন নিয়ে নানা ধরনের তালবাহনা শুরু হয়েছে বলে অনেক সদস্যের অভিযোগ। অধিকাংশ সদস্যই চাচ্ছেন নির্বাচন। এ নিয়ে পক্ষ বিপক্ষে নানা গ্রুপিং এখন টঙ্গে। কেউ চাচ্ছে গঠনতন্ত্র অনুসারে নির্বাচন হোক আবার কেউ নির্বাচন না দিয়ে সমর্থন ভোটেই পূণরায় পদবহাল রাখতে। এনিয়ে শহর জুড়ে ব্যাপক আলোচনা ও সমালোচনার ঝড় বইছে। গার্মেন্টস মালিক সমিতির একাধিক নেতা জানান, গঠনতন্ত্র অনুসারে প্রতি তিন বছর পরপর নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও বর্তমান কমিটি সেটি ভঙ্গ করে দীর্ঘ সাড়ে চার বছর অতিক্রম করছেন। নির্বাচনের পক্ষে ইতিমধ্যে শেরপুর জেলা গার্মেন্টস মালিক সমিতির ১শত ৬৩ সদস্যের মধ্যে ৯৫জন সদস্য বিশিষ্ট স্বাক্ষরিত একটি তালিকা তৈরি করেছেন। যা উপদেষ্টা মন্ডলীর উপস্থিতিতে একটি সুস্থ পরিবেশে নির্বাচন দাবি করা হয়েছে। এদিকে নির্বাচনের দাবি নিয়ে ওই গার্মেন্টস মালিক সমিতির একাংশ বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের হুইপ বীর মুক্তিযোদ্ধা মোঃ আতিউর রহমান আতিক এমপি, জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট চন্দন কুমার পাল, চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি আসাদুজ্জামান রওশন, শহর আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রকাশ দত্ত, শেরপুর পৌরসভার মেয়র আলহাজ্ব গোলাম মোহাম্মদ কিবরিয়া লিটন, প্যানেল মেয়র ১ নজরুল ইসলাম, জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি আলহাজ্ব ফখরুল মজিদ খোকন, সাংগঠনিক সম্পাদক আনোয়ারুল হাসান উৎপল, গার্মেন্টস মালিক সমিতির উপদেষ্টা মানিক দত্ত, লুৎফর রহমান বাদল, গার্মেন্টস মালিক সমিতির সভাপতি আলহাজ্ব মাশুকুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক জিয়াউল হক জুয়েল, নিউমার্কেট ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি লুৎফর রহমান নতুন, সাধারণ সম্পাদক কাজর সুরুজসহ স্থানীয় ব্যবসায়ী ও রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে এ নির্বাচন নিয়ে কথা বলেছেন।সেইসাথে প্রত্যেককে গার্মেন্টস মালিক সমিতির সদস্যদের স্বাক্ষর সম্বলিত একটি করে কপি দিয়েছেন।
এব্যাপারে নেতৃবৃন্দরা নির্বাচনের পক্ষে সমর্থন দিয়েছেন বলে প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে ।
এদিকে আগামী শুক্রবার সাধারণ পরিষদের জরুরি মিটিং ডেকেছেন গার্মেন্টস মালিক সমিতির নেতারা। একাংশের অভিযোগ তারা সে মিটিং এর মাধ্যমে তাদের মনগড়া ভাবে কন্ঠভোটের মাধ্যমে সিলেকশন দিবে এমনকি তাদের একটি খসড়া কমিটি ইতিমধ্যে করে রেখেছেন বলে অভিযোগ দিয়েছেন।

এব্যাপারে সংগঠনটির সিনিয়র সহ-সভাপতি মাহবুব আলম জানান, দীর্ঘদিন থেকে আমরা গার্মেন্টস মালিক সমিটির একটি অবাধ নিরপেক্ষ নির্বাচন দাবি করে আসছি। কিন্তু এখানে নির্বাচন না দেওয়ার পক্ষে কতিপয় কিছু নেতার উস্কানিতে এমনটা হচ্ছে। নির্বাচনের পক্ষে কমিটির বৃহৎ অংশ জোড়ালো সমর্থন দিয়েছেন। সকলের দাবি এটি একটি সুরাহা হোক।

অপরদিকে বর্তমান কমিটির সভাপতি মাশুকুর রহমান জানান, আগামী ২৮ মে শুক্রবার সাধারণ পরিষদের জরুরি মিটিং রয়েছে। সেখানেই সদস্যরাই সিদ্ধান্ত দিবেন যে নির্বাচন হবে কি হবে না। তাদের উপর ভিত্তি করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!