মোস্তাফিজের বিধ্বংসী বোলিংয়ে লন্ডভন্ড মোহামেডান

মোস্তাফিজের বিধ্বংসী বোলিংয়ে লন্ডভন্ড মোহামেডান

বিশেষ সংবাদদাতা ।শেরে বাংলায় ব্যাটসম্যানদের প্রাধান্য খর্ব করে হঠাৎ বল হাতে জ্বলে উঠলেন প্রাইম ব্যাংক ক্রিকেট ক্লাবের পেসার মোস্তাফিজুর রহমান। কাটার মাস্টার আজ শনিবার সন্ধ্যায় মোহামেডানের বিপক্ষে তার টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের সেরা বোলিং নৈপুণ্য দেখিয়েছেন।

তামিম ইকবাল আর মোস্তাফিজের দল প্রাইম ব্যাংকের বিপক্ষে টস জিতে ব্যাট করতে নামে সাকিব আল হাসানের মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব। মোস্তাফিজের বিধ্বংসী বোলিংয়ে ৮ উইকেট হারিয়ে ১৫০ রান সংগ্রহ করে মোহামেডান।

৪ ওভার বল করে ২২ রানে ৫ উইকেট দখল করেছেন মোস্তাফিজ। এটা অবশ্য তার একদম সেরা বোলিং স্পেল নয়। এর আগেও টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে মোস্তাফিজ এই ২২ রানেই ৫ উইকেটের পতন ঘটিয়েছিলেন। সেটা ২০১৬ সালের বিশ্বকাপ টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের আসরে।

কাটার মাস্টারের ক্যারিয়ারের অন্যতম স্মরণীয় ও সেরা বোলিং নৈপুণ্যে রীতিমত লন্ডভন্ড মোহামেডানের মিডল ও লেট ব্যাটিং অর্ডার।

শক্ত ও মজবুত ভিতের ওপর দাঁড়ানো সাকিব আল হাসান বাহিনী শেষ ৫ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে তুলেছে মোটে ৩৫ রান। মোস্তাফিজ একাই পতন ঘটিয়েছেন ৫ উইকেটের।

নিজের তৃতীয় ওভারে ৬ বলে তিন উইকেটের পতন ঘটান কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ। সাকিবকে দিয়ে শুরু। এরপর শুভাগত হোম, শামসুর রহমান শুভ, আবু হায়দার রনি ও তাসকিন আহমেদও আউট হন মোস্তাফিজের বলে।

শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত হাত খুলে খেলতে গিয়ে বারবার ব্যর্থ শামসুর রহমান শুভ ৩৪ বলে ৩৩ রানের ইনিংস খেলে ফিরে আসেন মোস্তাফিজের স্লোয়ারে কভারে ক্যাচ দিয়ে। এরপর মড়ক লাগে মোহামেডানের। মড়ক লাগান মোস্তাফিজ।

১৭.২ ওভারে সাকিবকে বোল্ড করার পর কাটার মাস্টার দুর্বার হয়ে ওঠেন। শেষ দুই ওভারে ৫ উইকেট দখল করে বসেন তিনি। তার বিধ্বংসী বোলিংয়েই মোহামেডানের শেষটা হয় করুন।

সাকিব যখন আউট হন, তখন রান ১৩৬। এরপর ৭ উইকেট অক্ষত থাকা সাদা কালোরা শেষ ১৬ বলে মাত্র ১৪ রান যোগ করতে সমর্থ হয়। হারায় আরও ৪ উইকেট। যার সবকটাই পান মোস্তাফিজ। শেষপর্যন্ত মোহামেডানের রান গিয়ে দাড়ায় ১৫০ -এ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!