বর্ষায় কেমন জামা-জুতা পরবেন?

বর্ষায় কেমন জামা-জুতা পরবেন?

লাইফস্টাইল ডেস্ক ।শুরু হয়েছে বর্ষাকাল। চারপাশ মুহূর্তেই অন্ধকার, আবার বৃষ্টি হতেও রৌদ্রজ্জ্বল। যখ-তখন বৃষ্টি হতে পারে এ সময়। তাই বর্ষায় ঘর থেকে বের হওয়ার সময় সাবধান থাকা উচিত, যাতে বৃষ্টি ভিজে না যান। হয়তো বিশেষ কোনো অনুষ্ঠানে যাবেন বলে, ঘর থেকে সেজেগুজে বের হয়েছেন, হঠাৎ বৃষ্টিতে ভিজে গেলেন!

সবকিছু মিলিয়ে বর্ষায় জামা ও জুতা পরার ক্ষেত্রে কয়েকটি বিষয় মাথায় রাখা জরুরি। তাহলে আর কাকভেজা হয়ে বিব্রতকর পরিস্থিতিতে পরতে হবে না। কিছু ফেব্রিকের কথা মাথায় রাখলেই আর এ সমস্যাগুলো হবে না। যে পোশাকই পরুন না কেন, ফেব্রিকের দিকটি মাথায় রাখুন।

বর্ষায় কেমন পোশাক পরবেন?

বর্ষায় পোশাক পরার ক্ষেত্রে হালকা নীল, সবুজ, সাদা এবং উজ্জ্বল রংগুলোর সংমিশ্রণ রাখা যেতে পারে। এর মধ্যে নীল রং আবার বিশেষভাবে বর্ষার রং হিসেবে পরিচিত। তাই বৃষ্টির দিনের সাজপোশাকে নীল রঙ বাদ দিলে চলবে না।

তাই বলে যে অন্য রং পরবেন না, তা তো নয়! লাল, কমলা, হলুদ, বেগুনি সব রঙের পোশাকই পরতে পারেন। প্রতিদিন ব্যবহারের জর্ন্য এ সময় জর্জেট, সিল্ক, সিনথেটিক কিংবা কটন কাপড়ের জামা পরতে পারেন।

বর্ষাকালে চোখ বুজে পাতলা সুতির পোশাক পরতে পারেন। সুতির পোশাকে যেমন গরম লাগে না; তেমনই ভিজে গেলে তাড়াতাড়ি শুকিয়েও যায়। হাওয়া চলাচল করার কারণে সুতির পোশাক খুবই আরামদায়ক। সতির থ্রি-পিস, কুর্তা বা পছন্দের পোশাক পরতে পারেন। অন্যদিতে ছেলেরাও কটন শার্ট, টি শার্ট কুর্তা পরুন।

পাশাপাশি সিফন বা নাইলন কাপড়ের পোশাক বৃষ্টির দিনে পরার জন্য সবচেয়ে ভালো। ভিজে গেলে এসব ফেব্রিক সবচেয়ে তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যায়। যে কোনো অনুষ্ঠানে পুরুষরাও আজকাল সিফন শার্ট পরছেন।

বৃষ্টির দিনে অনেকেই ডেনিম পরতে ভয় পান। তবে চাইলেই কিছু বিষয় মাথায় রেখে ডেনিম পরতে পারেন। রাস্তায় চলাফেরার জন্য ডেনিম খুবই ভালো। কাঁদা থেকে বাঁচতে গুটিয়ে নিলেই হয়ে যাবে। ডেনিম টাফ মেটেরিয়াল হওয়ায় সহজে নষ্টও হয় না।

বর্ষায় কেমন জুতা পরবেন?

বর্ষাকালে সবচেয়ে বেশি সমস্যা দেখা দেয় জুতা ব্যবহারের দিক দিয়ে। বৃষ্টি ও কাঁদার কারণে পছন্দের জুতা পরতে পারেন না অনেকেই। জুতার পাশাপাশি পায়ের অবস্থাও খারাপ হয়ে যায়। এই বর্ষায় জুতা টিকতেও চায় না বেশিদিন। তাই বর্ষায় বেছে নিতে হয় ফ্যাশনেবল ও টেকসই ওয়াটারপ্রুভ কিছু জুতা।

>> নরম রাবার বা প্লাস্টিকের তৈরি স্যান্ডেল বেছে নিতে পারেন। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের শো-রুমে এ জাতীয় স্যান্ডেল পেয়ে যাবেন সহজেই। এসব স্যান্ডেলের মধ্যে আছে নকশার ভিন্নতা ও রঙের বৈচিত্র্য। বর্ষায় গাঢ় রঙের পোশাকের সঙ্গে মিলিয়ে উজ্জ্বল রঙের স্যান্ডেল পরলে বেশ মানায়।

>> রেইনি বুটও পরতে পারেন। এমন ঘরানার জুতাতে পা অনেকটাই ঢাকা থাকে। এর ফলে কাদা-পানি থেকে রক্ষা পায় পা। স্কার্ট বা মিনি ড্রেসের সঙ্গে এই ধরনের জুতা খুব ভালো মানায়। নন লেদার ম্যাটেরিয়ালে তৈরি এই জুতাও ভেজে না বৃষ্টিতে, আর বেশ স্টাইলিস দেখতে।

>> প্রতিদিন যারা ঘর থেকে বের হন; সেসব নারীদের জন্য বর্ষায় সিয়েরা স্টেলা সিলভার উয়োম্যান শু খুবই উপকারী। এ ধরনের জুতাতে পা পুরোটাই ঢাকা থাকে। এই জুতার বিশেষত্ব এর হালকা ওজন। ক্যাজুয়াল ওয়েস্টার্ন পোশাকের সঙ্গে বেশ মানায় এই জুতা।?

>> গ্ল্যামারাস লেডিজ ফ্যান্সি রেন স্লিপ অনস জুতাগুলো বর্ষায় পরতে পারেন। বেশ স্টাইলিস ও ক্যাজুয়াল ঘরানার এই জুতা পায়ের পিছন দিক খোলা ও সামনের দিকের পায়ের পাতা ঢাকা থাকে এই জুতায়। সিনথেটিক ম্যাটেরিয়াল দিয়ে তৈরি হয় এই জুতাগুলো।

>> বাজারে মিলবে পিভিসি প্লাস্টিকের তৈরি অ্যাঙ্কল লেংথ বুটও। পাওয়া যাবে নানা ডিজাইন আর রঙে। নতুন ট্রেন্ড হিসেবে যুক্ত হচ্ছে কার্টুন থেকে শুরু করে নানা ইমোটিকন প্রিন্টেড প্যাটার্ন। হালকা হিল থাকায় এসব জুতায় কাদা ছিটার ভয় নেই।

>> ভারি বর্ষণে ঘর থেকে বের হওয়ার সময় একমাত্র ভরসা হতে পারে কাফ লেংথ রেইন বুট। শক্তপোক্ত আর রাবারের তৈরি জুতা যেমন আরামদায়ক; তেমনই বৃষ্টির দিনে পরে হাঁটতে পারবেন খুব সহজেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!