শেরপুরের নকলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে আহত ১৬

শেরপুরের নকলায় জমি সংক্রান্ত বিরোধে আহত ১৬

স্টাফ রিপোর্টার: শেরপুর জেলার নকলা উপজেলার বানের্শ্বদী ইউনিয়নে নয়আনীপাড়া গ্রামে জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে এ্কই পরিবারের দুই প্রতিবন্ধি তিন নারীসহ অন্তত ১০ জনকে কোপিয়ে আহত করা হয়েছে।অপর পরিবারের আরও ছয়জন আহত হয়েছেন বলে দাবী করা হয়েছে।১৯ জুলাই সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে এই ঘটনা ঘটে।ওই গ্রামের মৃত ফুল মামুদের ছেলে মোন্তাজ ,তার ভাই কাগজ আলী, ছেলে জাহাঙ্গীর ও ছেলে জুয়েলসহ আরও অন্তত ১৫/২০ দেশীয় অস্ত্রশস্ত্রে সজ্জিত হয়ে দিনে দুপুরে বৃদ্ধা আনোয়ারা বেওয়ার বাড়ীতে চালায়।হামলায় বৃদ্ধা আনোয়ারা বেওয়া (৮০), তার মেয়ের জামাই শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালের সেবক সালেহ উদ্দিন (৫৫), সালেহ উদ্দিনের স্ত্রী সিনিয়র স্টাফ নার্স পারভীনা বেগম (৪৫), ছেলে পারভেজ মোশারফ (১৮), মৃত সিরাজ আলীর ছেলে মনির হোসেন (৩৩),প্রতিবন্ধী বেদেনা (৫) ও সাবিনা বেগম (২৮),মনোয়ারা বেগম (৬০),আশরাফ আলীর ছেলে শফিকুল (৫০),ময়না বেগমসহ(৪০) ১০ জন গুরুতর আহত হয়। আহতদের উদ্ধার করে শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।অপর পক্ষের ছয় জনকে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে বলে দাবী করেছেন অপর পক্ষের লোকজন।
পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নকলা উপজেলার বানের্শ্বদী ইউনিয়নের নয়আনীপাড়া গ্রামের মৃত ফুল মামুদের ছেলে মোন্তাজদের সাথে একই গ্রামের প্রতিবেশী আনোয়ারা বেওয়া ও তার ছেলে মনির হোসেনদের ১০ শতাংশ জমি নিয়ে দীর্ঘদিন ধরে বিরোধ এবং আদালতে মামলা চলছে দীর্ঘদিন। আদালত গত ১ এপ্রিল বৃদ্ধা আনোয়ারা বেওয়ার পক্ষে রায় প্রদান কওে এবং প্রতিপক্ষদের ওই জমিতে প্রবেশে নিষেধাজ্ঞা দেয়।গতকাল রবিবার সন্ধ্যায় কোরবাণী ঈদকে কেন্দ্র করে আনোয়ারা বেওয়ার মেয়ে শেরপুর জেলা সদর হাসপাতালে কর্মরত সেবিকা পারভীনা বেগম ও স্বামী সালেহ উদ্দিন ও নাতী পারভেজ মোশারফ গ্রামে বেড়াতে যান।১৯ জুলাই সোমবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে তারা কোরবানির বিষয়াদি নিয়ে পরিবারের লোকজন উঠানে আলোচনা করছিল।এসময় অভিযুক্তরা একসাথে হয়ে দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে আনোয়ারা বেওয়ার বসতবাড়ীতে হামলা চালায়।এক পর্যায়ে বাড়ীতে যাকেই পাওয়া গেছে তাকেই আহত করা হয়েছে।আহতদে মধ্যে সালেহ উদ্দিনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানিয়েছে কর্তব্যরত ডাক্তার দিশা।খবর পেয়ে নকলা থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।স্থানীয়রা বলেছেন এই ঘটনাকে কেন্দ্র করে সারা একালাকা থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে।
এব্যাপারে নকলা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুশফিকুর রহমান দুই পরিবারের মধ্যে জমি নিয়ে বিরোধ চলছিল। সম্প্রতি আদালত মোন্তাজ গংদের ওই জমিতে প্রবেশের নিষেধাজ্ঞা দেয়।ঘটনার সময় অভিযুক্তরা জমিতে প্রবেশ করতে গেলে এই সংঘর্ষ হয়।ওই সংঘর্ষে বৃদ্ধা আনোয়ারা বেওয়ার পক্ষে ১০ জন এবং মোন্তাজ গংদের ৬ জন আহত হয়ে ময়মনসিংহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে বলে তিনি জানান।এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.