গারো কৃষকদের ফসল কাটায় রাজধানীতে আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের বিক্ষোভ সমাবেশ

গারো কৃষকদের ফসল কাটায় রাজধানীতে আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের বিক্ষোভ সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিবেদক:শেরপুরে শ্রীবরদী বালিজুড়ি খ্রীষ্টান পাড়ায় বন বিভাগ কর্তৃক গারো কৃষকদের জুমের ফসল কেটে ফেলার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদ। ১৭ আগস্ট মঙ্গলবার সকালে রাজধানীর শাহবাগ এলাকায় জাতীয় জাদুঘরের সামনে এ বিক্ষোভ সমাবেশটি অনুষ্ঠিত হয়। ওই সমাবেশ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত গারো কৃষকদের ক্ষতিপূরণ এবং ঘটনার তদন্ত করে এর সাথে জড়িত বন কর্মীদের শাস্তি দাবী করা হয়।

বাংলাদেশ আদিবাসী ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সাধারণ সম্পাদক অলীক মৃ, জানান, সমাবেশে গত ১২ আগস্ট শেরপুরের শ্রীবরদী উপজেলার বালিজুড়ির ঘটনা ছাড়াও ১৪ আগস্ট সুনামগঞ্জের তাহিরপুরে হাজং আদিবাসী নারীর উপর যৌন নিপীড়নকারীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করা হয়।

তাছাড়া মৌলভীবাজারের সাহেবটিলা থেকে গারো ও খাসিয়া সম্প্রদায়ের লোকদের উচ্ছেদ করার বন বিভাগের ষড়যন্ত্রেরও প্রতিবাদ জানানো হয়। এছাড়া সমাবেশে আরও বেশ কিছু দাবি উত্থাপন করা হয়েছে। সেইসাথে সমাবেশ থেকে সমতলের আদিবাসীদের জন্য পৃথক ভুমি কমিশন ও পৃথক আদিবাসী মানবাধিকার কমিশন গঠনের দাবীও জানানো হয়। সমাবেশে একাত্মতা প্রকাশ করে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজবিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক খায়রুল চৌধুরী, নৃ-বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক জোবাইদা নাসরিন, বাংলাদেশ আদিবাসী যুব ফোরামের সভাপতি অনন্ত বিকাশ ধামাই, হাজং ছাত্র সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক আশীষ হাজং প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে, বাংলাদেশ গারো ছাত্র সংগঠন (বাগাছাস), কেন্দ্রীয় সংসদ সভাপতি লিঙ্কন ডিব্রার নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল শ্রীবরদীর বালিজুরী খৃষ্টান পাড়ার ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার ও এলাকা পরিদর্শন করেছেন। এসময় তারা প্রাক্তন বাগাছাস নেতৃবৃন্দের সহযোগিতায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে কিছু আর্থিক সহায়তাও প্রদান করেছেন। বাগাছাস নেতৃবৃন্দ বালিজুরী খৃষ্টান পাড়ার অধিবাসীদের সাথে এক বৈঠকে মিলিত হন এবং গত ১২ আগস্টে ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান।

এলাকাবাসী ওই ন্যাক্কারজনক ঘটনার প্রতিবাদে অগ্রণী ভূমিকা পালনের জন্য বাগাছাস নেতৃবৃন্দকেও ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। বাগাছাস নেতৃবৃন্দও পূর্বাপর সময়ের মতো সবসময়ই তাদের পাশে থাকার অঙ্গীকার ব্যক্ত করেন।

এসময় কেন্দ্রিয় নেতৃবৃন্দের সাথে বাগাছাস শ্রীবরদী, ঝিনাইগাতি, নালিতাবাড়ী ও মধুপুর শাখার নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন। পরে বাগাছাস নেতৃবৃন্দ স্থানীয় টিডব্লিওএ (ট্রাইবাল ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশন) নেতা ও এলাকার আদিবাসী নেবৃবৃন্দের সাথে সৌজন্য সাক্ষাৎ ও পরবর্তী করণীয় নিয়ে আলোচনা করেন।

এ বিষয়ে ঝিনাইগাতী টিডব্লিওএ সাধারণ সম্পাদক অসীম সাং কেন্দ্রিয় বাগাছাস নেতৃবৃন্দের শ্রীবরদীর বালিজুড়ির ঘটনাস্থল পরিদর্শনের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন। তিনি জানান, বাগাছাসের পক্ষ থেকে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারগুলোকে তারা কিছু আর্থিক সহায়তা করেছেন। ওই ঘটনায় ১৩ আগস্টের প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে যেহেতু ৭ দিনের আল্টিমেটাম দেয়া হয়েছে, সেহেতু ৭ দিনের মধ্যে যদি প্রশাসন ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহন না করেন তাহলে বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!