আমিরাবাড়ীর রাস্তা ছোট ডোবা-সত্যবয়ান

আমিরাবাড়ীর রাস্তা ছোট ডোবা-সত্যবয়ান

আবু তোরাব, ত্রিশাল(ময়মনসিংহ)প্রতিনিধি:ময়মনসিংহের ত্রিশালে রাস্তা দেখলে মনে হবে এটা কোন রাস্তা নয় যেন ছোট একটা ডোবা। উপজেলার আমিরাবাড়ী ইউনিয়নের ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের বগার বাজার চৌরাস্তা থেকে সানকিভাঙ্গা বাজার রাস্তার বগার বাজার চৌরাস্তা মোড়ে সারা বছরই জমে থাকে কাঁদাযুক্ত পানি।

ফলে শিক্ষার্থী, দোকানদার, গার্মেন্সকর্মী ও জনসাধারণের চলাচলে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাতে হয়। এটি উপজেলার দুই ইউনিয়ন ও ফুলবাড়িয়া উপজেলার সংযোগ সড়ক। এ সড়কে রয়েছে আকিজ সিরামিকস, খাদ্য ফেক্টরি নিপ্পনসহ কয়েকটি কারখানা।

স্থানীয়রা জানান, বগার বাজার চৌরাস্তা থেকে সানকিভাঙ্গা বাজার এটি একটি ব্যস্ততম সড়ক। এখানে রয়েছে কয়েকটি কারখানা। এই সড়কের চৌরাস্তা মোড়ে সারা বছরই পানি আটকে থাকে। পানি নিষ্কাশনের নেই কোন ব্যবস্থা। রাস্তার দুইপাশে উচু করে মার্কেট তৈরি করা হয়েছে পানি কোথাও যেতে পারে না।

স্থানীয় বাসিন্দা এম এম মাসুদ রানা জানান, এ রাস্তাটি নিয়ে আমরা অনেক বিপদে আছি। ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় পানি জমে অল্প বৃষ্টিতেই কাঁদার সৃষ্টি হয়। এতে রাস্তায় পায়ে হেটে চলা দুস্কর হয়ে দাঁড়িয়েছে। বৃষ্টি না থাকলেও সারা বছর এখানে পানি আটকে থাকে। এ জায়গায় কাঁদা-পানি জমায় চলাচলে চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে সাধারণ পথচারীরা।

সরেজমিনে দেখাযায়, এ রাস্তায় পানি নিষ্কাশনের নেই কোন ব্যবস্থা। দুই পাশে মার্কেট, কোন ড্রেনেজ ব্যবস্থা না থাকায় পানি জমে অল্প বৃষ্টিতেই কাঁদার সৃষ্টি হয়। যার ফলে মানুষ পায়ে হেটেও যেতে কষ্ট হয়। রাস্তায় সারা বছর পানি আটকে থাকার ফলে গর্তের সৃষ্টি হয়েছে।

স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান আনিছুর রহমান ভুট্রোর সঙ্গে এ বিষয়ে মুঠোফোনে অনেকবার যোগাযোগের চেষ্টা করলেও তাকে পাওয়া যায়নি।

ত্রিশাল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোস্তাফিজুর রহমান জানান, আমি উপজেলা চেয়ারম্যান সাহেবকে নিয়ে পরিদর্শন করেছি। আটকে থাকা পানি নিষ্কাশনের জন্য স্থানীয় চেয়ারম্যানকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। দ্রুতই পানি নিষ্কাসনের ব্যবস্থা করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!