দুই ভাবির সহযোগিতায় গৃহবধূকে ধর্ষণ-সত্যবয়ান

দুই ভাবির সহযোগিতায় গৃহবধূকে ধর্ষণ-সত্যবয়ান

রংপুর প্রতিনিধি||রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার লতিবপুর ইউনিয়নে অভিরামপুর গ্রামে এক গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে থানায় মামলা হয়েছে।

স্থানীয় দুই ভাবির সহযোগিতায় জাহিদুল নামে এক যুবকের বিরুদ্ধে তিনি এই ধর্ষণের অভিযোগ তুলেছেন। প্রথমবার ধর্ষণের ভিডিও চিত্র করে তা নেটে ছড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে একাধিকবার ধর্ষণ করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করা হয়েছে।

স্থানীয় ইউপি সদস্য মো: খোরশেদ আলী জানান, ঘটনাটি শোনামাত্রই আমি ভিকটিমকে মামলা করার নির্দেশনা দিয়েছি। এই ঘটনায় যারা মীমাংসার চেষ্টা করেছে এবং অর্থ লেনদেন করেছে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার জন্য আমি পুলিশকে বলেছি।

মামলার ও প্রাথমিক তদন্তের উদ্ধৃতি দিয়ে মিঠাপুকুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমিরুজ্জামান জানান, উপজেলার অভিরামপুর এলাকার এক গৃহবধূকে একই গ্রামের মৃত আব্দুল মজিদের ছেলে জাহিদুল ইসলাম (২৫) তার ভাবি শাপলা বেগম ও রাশেদা বেগমের বাড়িতে ডেকে নিয়ে জুসের সাথে ওষুধ মিশিয়ে খাওয়ানোর পর ধর্ষণ করে। ধর্ষণের সময় দুই ভাবি ঘটনাটি মোবাইলে ভিডিও করে। পরে ভিডিওটি ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেয়ার ভয় দেখিয়ে ওই বাড়িতে এনে গৃহবধূকে একাধিকবার ধর্ষণ করে জাহিদুল।

ওসি বলেন, মামলায় বলা হয়েছে ওই গৃহবধূর স্বামী ঢাকায় থাকেন। বিষয়টি তিনি অনেক দিন গোপন রেখেছিলেন। কয়েক দিন আগে আবারো গৃহবধূকে ভাবি শাপলা বেগমের বাসায় রাত কাটানোর প্রস্তাব দেয় জাহিদুল। উপায়ন্তর না দেখে পুরো বিষয়টি স্বামীকে খুলে বলেন ওই গৃহবধূ। স্বামী এ বিষয়ে স্থানীয়দের কাছে বিচার দাবি করেন। বিচারের নামে টাকা দিয়ে ঘটনাটি মীমাংসার চেষ্টা চালায় স্থানীয়রা। পরে বিষয়টি আমাদের জানানো হলে আমরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে মামলা গ্রহণ করি।

রংপুর পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (ডি-সার্কেল) কামরুজ্জামান জানান, স্থানীয়রা ঘটনাটি আমাকে মোবাইলে অবহিত করলে বিষয়টি আমি এসপি মহোদয়কে জানাই। পরে তার নির্দেশে মিঠাপুকুর মানাগে ঘটনাটি সরেজমিনে পরিদর্শন করে মামলা গ্রহণের নির্দেশনা দেই।

Leave a Reply

Your email address will not be published.