প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত প্রতিমা শিল্পীরা-সত্যবয়ান

প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত প্রতিমা শিল্পীরা-সত্যবয়ান

নকলা,(শেরপুর) প্রতিনিধিঃ সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় উৎসব শারদীয় দূর্গা পূজা আগামী ১১ ই অক্টোবর থেকে দেশজুড়ে শুরু হবে। হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের মা দূর্গার আগমন উপলক্ষে শেরপুরের নকলায় প্রায় সকল পূজা মন্ডপে প্রতিমা তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছেন প্রতিমা তৈরির কারিগররা।

সময় যতই সামনের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে ততই সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে দেখা যাচ্ছে পূজার প্রস্তুতি। পূজাকে সামনে রেখে নকলার সকল পূজা মণ্ডপ গুলোতে চলছে পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতার কাজ। খড়,বাশ,সুতলী ও মাটি দিয়ে প্রতীমা তৈরির কাজও একেবার শেষের দিকে। প্রতিমাগুলোর সৌন্দর্য্য বর্ধনের জন্য তৈরি করা হচ্ছে মাটির বাহারি নকশা যা একটু শুকালেই দেওয়া হবে রং তুলির আচর।

সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মতে,মা দূর্গা চলতি বছরের ১১ অক্টোবর ঘোটকে (ঘোড়ায়) চড়ে মহা ষষ্ঠীর দিনে পৃথিবীতে আসবেন, মহিশ অসুর কে বধ করার মাধ্যমে পৃথিবী থেকে সকল দুর্গতি নাশ করে ১৫ই অক্টোবর দশমির মহাপ্রলয়ের দিনে দোলায় চড়ে আবার স্বর্গে ফিরে যাবেন।

উল্লেখ্য,আসন্ন দূর্গা পুজাকে ঘিরে নকলায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের ঘরে ঘরে বইছে উৎসবের আমেজ।
শেরপুর জেলার হিন্দু বৌদ্ধ ঐক্য পরিষদের সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রী সুনীল রবি দাস ও
নকলা উপজেলা পূজা উদযাপন কমিটির সভাপতি দেবজিৎ পোদ্দার ঝুমুর জানান, মহামারি করোনায় সরকারের সব নিয়ম এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে সীমিত আকারে উপজেলার মোট ১৯টি পূজা মণ্ডপে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হবে। এরই ধারাবাহিকতায় ১৫ই অক্টোবর দশমীর মহাপ্রলয়ের দিনে সন্ধ্যার পর প্রতিমা বিসর্জনের সময়ও নির্ধারণ করা হয়েছে।

নকলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ মুশফিকুর রহমান জানান,নকলা উপজেলায় আসন্ন শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে পুলিশের পক্ষ থেকে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করার পাশাপাশি প্রতিটি পূজা মন্ডপে পুলিশ ও আনসারের একটি দল নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে এবং এসব স্থানে সর্বপ্রকার ইভটিজিং, মাদক, জঙ্গিবাদ রোধে সারা দেশের ন্যায় নকলাতেও বিশেষ সতর্কতা অবলম্বন করা হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!