তেজপাতায় উপকারিতা-সত্যবয়ান

তেজপাতায় উপকারিতা-সত্যবয়ান

লাইফস্টাইল ডেস্ক: রান্নার কাজ বাদেও তেজপাতার রয়েছে বহু ব্যবহার। কেননা, এই পাতায় রয়েছে অনেক গুণাবলী। অনেক সমস্যায় সমাধান হতে পারে তেজপাতা ব্যবহারে। আসুন, জেনে নেয়া যাক তেজপাতায় রয়েছে কোন কোন সমস্যার সমাধান! কাশি, গলাব্যথা বা গলা ভেঙে গেলে পানিতে তেজপাতা দিয়ে ফুটিয়ে সেই পানি খেলে দ্রুত সমস্যার সমাধান হতে পারে। ফোঁড়া সমস্যার সমাধান পেতে তেজপাতা বেটে তার উপর প্রলেপ দিলে কমতে পারে ব্যথা এবং তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যেতে পারে ফোঁড়া। প্রসাবের রং হলুদ বা শরীর শুকিয়ে গেলে তেজপাতা গরম পানিতে ভিজিয়ে দুই ঘণ্টা রেখে পরে ছেঁকে নিয়ে খেলে দূর হতে পারে সমস্যা। প্রচন্ড ঘামের সমস্যা হলে তেজপাতা বেটে সারা গায়ে মাখিয়ে আধা ঘণ্টা রেখে গোসল করলে কমতে পারে ঘামের সমস্যা। তেজপাতা বাটা গায়ে লাগালে দূর হতে পারে গায়ের দুর্গন্ধ, সঙ্গে ত্বক শুষ্কতাও

তেজপাতার আরো ১০ টি ঔষুধি গুন সম্পর্কে জেনে নিন। সাধারণত বিভিন্ন খাবারের মধ্য তেজপাতা ব্যাবহার করা হয়। কিন্তু তেজপাতা শুধু খাবারের মধ্য ব্যবহার এর বাদে ও অনেক ঔষুধি উপাদান রয়েছে এই তেজপাতায়।

১) চাপ কমায়: তেজপাতা চাপ ও উদ্বিগ্নতা কমায়। সারাদিন শেষে যদি আপনার ভাল না লাগে। বিরক্তকর লাগে, অসস্থি লাগে, তাহলে তেজপাতা দিয়ে এক কাপ চা খেয়ে দেখতে পারেন।এটি আপনার স্নায়ু শান্ত করবে। এছাড়াও তেজপাতা ভাল ঘুম হতে সাহায্য করে।

২) কিডনির পাথরের সমস্যায়: তেজপাতা আমাদের শরীরের ইউরিয়া এর পরিমান কমাতে প্রচুর সাহায্য করে। এছাড়া ও কিডনির পাথর এ ধরনের সমস্যা সমাধানে তেজপাতার ভুমিকা অনেক। ইউরিয়া বেড়ে গেলে কিডনির সমস্যা হয়। কিন্তু তেজপাতা ইউরিয়ার পরিমান কমায়।

৩) গলা খুশখুশ ও কাশি: আপনার যদি গলা খুশখুশ বা কাশি হয়ে থাকে, তাহলে আপনার জন্য তেজপাতা অত্যান্ত কার্যকারি। সাধারণত ব্যাকটেরিয়ার জন্য এমন হয়। এজন্য ৩-৫ টি তেজিপাতা কুসুম গরম পানিতে সিদ্ধ করুন। এবং পানি ঠান্ডা করে নিন।এবং পরিস্কার কাপড় পানিতে ভিজিয়ে বুক মুছুন। এতে অনেক উপকার হবে।

৪) ক্ষত নিরাময়: তেজপাতায় আছে অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল ও মাইক্রোটেরিয়াল। যা ক্ষত সাড়াতে খুব উপকারী। এটি ছত্রাক সক্রামনের বিরুদ্ধে ও কাজ করে।

৫) ক্যান্সারের বিরুদ্ধে কাজ করে: তেজপাতা ক্যান্সার নিরাময়ে ও প্রচুর ভুমিকা পালন করে। তেজপাতা ক্যান্সার কোষ ধ্বংস করে। তেজপাতা ব্রেস্ট ক্যান্সার এর বিরুদ্ধে ও অনেক কাজ করে।

৬) ব্যথা উপশম: তেজপাতা বিভিন্ন ব্যথা উপশমে অনেক ভুমিকা পালন করে। এছাড়া ও বিভিন্ন প্রদাহ উপশমে তেজপাতা কাজ করে। মাথা ব্যাথা,জয়েন্টের ব্যথা,ও বাতের ব্যাথা উপশমে ও কার্যকারি।তেজপাতা ও রেডি পাতা পেস্ট করে আক্রান্ত স্থানে ২০ মিনিট লাগিয়ে রাখলেই ব্যথা কমে যাবে।এছাড়া ও পাতার তেল কপালে ম্যাসেজ করলে ও ভাল ফল পাওয়া যায়।

৭) হার্টের স্বাস্থ ভাল রাখে: তেজপাতায় রয়েছে রুটিন ক্যাফেক এসিড। যে গুলো হার্টের দেয়ালকে মজবুত করে। এছাড়া ও কোলেস্টেরল এর মাত্রা কমিয়ে দেয়। হার্ট অ্যাটাক এর মতো সমস্যা উপশম হয়।

৮) হজমে সাহায্য করে: তেজপাতা হজমে প্রচুর সাহায্য করে। এবং স্বাভাবিক হজম শক্তিকে ফিরিয়ে আনতে তেজপাতা ভুমিকা পালন করে।তেজপাতা শরীর থেকে অতিরিক্ত টক্সিন কে বের করে দেয়। এছাড়া ও অতিরিক্ত প্রসাব সমস্যা দূর করে।

৯) ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রনে রাখে: তেজপাতা ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রিত রাখে। এক গবেষনায় দেখা গেছে দিনে ২ বার তেজপাতা খেলে রক্তের সর্কার পরিমান কমায়।
যারা টাইপ -২ ডায়াবেটিস এ আক্রান্ত তাদের জন্য তেজপাতা খুব উপকারী।

১০) চুলের বৃদ্ধি ও খুশকি কমায়: চুলের জন্য তেজপাতা অত্যান্ত উপকারী। যাদের চুল ঝরে যাচ্ছে ও যাদের অনেক খুশকি তারা কয়েকটি তেজপাতা গরম পানিতে সিদ্ধ করে কিছুক্ষন ঠান্ডা হতে দিন।এবং পানি দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন। এতে অনেক উপকার পাবেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!