অর্থের অভাবে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা হতে বঞ্চিত হচ্ছে শিক্ষক লুৎফর রহমানের সহধর্মিণী-সত্যবয়ান

অর্থের অভাবে প্রয়োজনীয় চিকিৎসা হতে বঞ্চিত হচ্ছে শিক্ষক লুৎফর রহমানের সহধর্মিণী-সত্যবয়ান

নকলা (শেরপুর )প্রতিনিধি :শেরপুরের নকলা উপজেলাধীন টালকি ইউনিয়নের মজিদবাড়ীর অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক লুৎফর রহমান।

যিনি অবসরের পর প্যারালাইসিসে অসুস্থ স্ত্রী কে দীর্ঘ ৯ বছর ধরে ক্লান্তিহীন ভাবে সেবা দিয়ে একজন আদর্শ স্বামীর পরিচয় তুলে ধরেছেন বর্তমান সমাজে। শিক্ষা ও সেবা দুটোই বর্তমান সময়ে বাস্তব উদাহরণ এই মহান শিক্ষক।

বিগত ২০১২ সাল থেকে দীর্ঘ ৯ বছর ধরে ব্রেইন স্টোকে আক্রান্ত হয়ে বিছানায় শুয়ে শুয়ে মৃত্যুর প্রহর গুনছে এই শিক্ষকের স্ত্রী জহুরা আক্তার (৫৫) । অবসরপ্রাপ্ত স্বামী লুৎফর রহমান সেই ১৯৯৩ সালে একই এলাকায় মুক্তিযোদ্ধা স্মৃতি প্রাথমিক বিদ্যালয় থেকে অবসরে যান । কৃষি কাজ করে কোন মতে দিন পার করতেন পরিবার নিয়ে। অসুস্থ স্ত্রীর দীর্ঘদিন ধরে চিকিৎসা করে সব হারিয়ে আজ তিনি নিঃস্ব।

৯ বছর ধরে কি যে কষ্টে আছে তা নিজ চোখে না দেখলে সেই কষ্ট আমাদের হৃদয় স্পর্শ করবে না।

প্রতিদিন স্ত্রীকে খাবার খাওয়ানো, গোসল করানো প্রস্রাব পায়খানা পরিস্কার করা যার রুটিন হয়ে দাঁড়িয়েছে আজ দীর্ঘ ৯ বছর ধরে। শারীরিক ও বাকশক্তি হারিয়ে সবকিছুতে নির্ভরশীল শিক্ষক স্বামীর উপর। ৫ ছেলের মধ্যে ২ ছেলে ঢাকায় পোশাক শ্রমিকের কাজ করে এক ছেলে দীর্ঘ দিন ধরে নিখোঁজ ছোট ছেলে কিশোরগঞ্জ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট ছাত্র। বাড়ীতে একমাত্র স্বামী ছাড়া সেবা করার নেই কেও।

এরই মধ্যে শরীরে বাসা বেঁধেছে ডায়বেটিস নামক নিরব ঘাতক। এছাড়াও ডান পায়ের ২ টি আঙ্গুল পচন ধরে পরে গেছে। ডাক্তার দ্রুত পায়ের পচন রোধে পা কাঁটার পরামর্শ দিয়েছেন। পায়ের পচন ধরায় ঘরের মধ্যে দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়েছে। সেই সাথে ডায়াবেটিকস রোগের ইনসুলিন কেনার টাকা জোগাড় করা দুঃসাধ্য হয়ে পড়েছে তার জন্য।

অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক এখানেই অসহায় কারণ অর্থের অভাবে চিকিৎসা করতে পারছে না তার প্রিয়তমা স্ত্রী জহুরা বেগমের। কান্না জড়িত কন্ঠে লুৎফর রহমান বলেন, দীর্ঘ দিন অসুস্থ স্ত্রীর সেবা করে আমি আজ নিঃস্ব। শিক্ষক হয়ে সমাজের অনেকেই বিদ্যা নিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে। তবে কেউ আজ আমার পাশে সহযোগিতার হাত বাড়াইনি।

শিক্ষক লুৎফর রহমান জানান, অনেকেই এসেছে দেখতে তবে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়ার মত সমাজের কাউকে পাইনি। যে হাতে কাগজে কলমে ছাত্র ছাত্রীদের শিক্ষা দিয়েছি সেই হাত কি সমাজের কাছে পাত্তে পারি ? আমার স্ত্রীর চিকিৎসার জন্য প্রশাসনের সহযোগিতা চাওয়া ছাড়া আর কোন উপায় নেই।

অত্র ইউনিয়ন যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক রুবেল সরকার বলেন, একজন অসুস্থ স্ত্রীর প্রতি স্বামীর কর্তব্য তার প্রকৃত উদাহরণ হিসেবে বাস্তব প্রমাণ আমাদের লুৎফর রহমান স্যার।

অসুস্থ স্ত্রীর চিকিৎসার জন্য সমাজের বিত্তবানদের প্রতি ও প্রশাসনের কাছে সহযোগিতা চেয়েছেন এই অসহায় অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক লুৎফর রহমান।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!