নারী লোভী কখনোই সুখী হয় না : সুবাহ-সত্যবয়ান

নারী লোভী কখনোই সুখী হয় না : সুবাহ-সত্যবয়ান

বিনোদন ডেস্ক: তিন বছর আগের কথা। ২০১৮ সালে মডেল ও অভিনেত্রী সুবাহ শাহ হুমায়রার একটি ভিডিও তুমুল আলোচনার জন্ম দিয়েছিল। যে ভিডিওতে তিনি জাতীয় দলের এক সময়কার নিয়মিত ক্রিকেটার নাসির হোসেনের সঙ্গে নিজের সম্পর্কের ব্যাপারটি ফাঁস করেছিলেন।

নাসির-সুবাহথর সেই আলোচিত প্রেমের ইতি ঘটেছে বেশ আগেই। এই নায়িকার প্রেমকে পায়ে ঠেলে চলতি বছরের বিশ্ব ভালোবাসা দিবসে (১৪ ফেব্রুয়ারি) তামিমা তাম্মিকে বিয়ে করেছেন নাসির। অন্যদিকে এই ক্রিকেটারের স্মৃতি ভুলে নতুন প্রেমে মজেছেন সুবাহ। সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ সরব এই অভিনেত্রী। নাসিরের অধ্যায় সামনে এলেই পুরনো সম্পর্ক প্রসঙ্গে মন্তব্য করতে ছাড়েন না সুবাহ। এছাড়াও নিজের ব্যক্তিজীবনের বিভিন্ন মুহূর্তের ছবি, ভিডিও প্রকাশ করতেও দেখা যায় তাকে। বৃহস্পতিবার (১৮ নভেম্বর) দুপুরে ফেসবুক স্ট্যাটাসে সুবাহ লিখেছেন, ‘একটা বাস্তব, লোভী নারী আর নারী লোভী পুরুষ কখনোই সুখী হয় না।

তার সেই স্ট্যাটাসে নেটিজেনরা নানা ধরণের মন্তব্য করেছেন। তৌফিক খান নামে একজন জানতে চেয়েছেন, ‘তুমি কোনটা?থ জবাবে সুবাহ লিখেছেন, ‘আমি কোনটা তা সবাই জানে। লোভী হলে সবাই দেখতেই পারতো। আমি যেমন ছিলাম তেমনই আছি।

আহমেদ ইমতিয়াজ খালেদ সুবাহথর প্রাক্তন প্রেমিক নাসিরের প্রসঙ্গ টেনে লিখেছেন, ‘যেমন নাসির আর নাসিরের বউ। সেখানে পাল্টা মন্তব্যে সুবাহ লিখেছেন, ‘পারফেক্ট।

সপ্তাহ খানেক আগে (১১ নভেম্বর) সোশ্যাল মিডিয়ায় সুবাহ লিখেছেন, ‘একজন সুদর্শন পুরুষের চেয়ে একজন যত্নশীল পুরুষ উত্তম!

এর আগের পোস্টে (১০ নভেম্বর) তিনি লিখেছেন, চ্কামড়াকামড়ি করে একটা সম্পর্ক টিকায়ে রাখার চেয়ে বিচ্ছেদ শ্রেয়। সম্পর্কের শ্রদ্ধা, বিশ্বাস ও অস্তিত্বের জায়গা নষ্ট হয়ে যাওয়ার পরও যারা সেটা মানতে পারে না, তাদের চেয়ে হিপোক্রেট আর কোনো মানুষ নেই। আর যারা বিচ্ছেদের পর ‘সে আমাকে ভালোবাসলো না কেনথ এবং ‘সে ছেলে বা মেয়ে প্রতারক ছিল, সে ভালো ছিল নাথ এই দুই নৌকায়ই পা দিয়ে চলে, তারা হলো সবচেয়ে বড় সুবিধাবাদী।

সুবাহ আরও লেখেন, ‘যেকোনো একটা সিদ্ধান্ত নিন, ভালোবাসবেন, বাসতেন বা বাসেন। নাকি গালাগাল করতেন, করেন বা করবেন? আপনি একদিকে ‘তাকে এখনও ভালোবাসেনথ টাইপ কথা বলে সিমপ্যাথি (সহানুভূতি) নেবেন আবার আরেকদিকে শখের বশে নিচের শ্রেণিতে নেমে দুনিয়াজুড়ে প্রাক্তনকে গালাগালি দিয়ে বেড়াবেন, তা তো হয় না, তাই না? যেকোনো একটা করেন! হয় নিজের সম্মান রাখেন, না হয় নিজের অ্যাটিটিউড! দুইটার যাতাকলে পড়ে ব্যক্তিমানুষ হিসেবে লেইম হয়ে যাবেন না।

সবশেষে সুবাহ লেখেন, ‘ঝামেলা হলো ওপরের সবগুলা প্যারায় বর্ণিত ঘটনাগুলাকে আপনারা কালচার বানাচ্ছেন। কালচার আর বদ অভ্যাসের পার্থক্য নির্ণয় করতে শিখুন। নিজেদের যোগ্যতা এবং অযোগ্যতা বুঝতে শিখুন। প্রেম-বিচ্ছেদ সংক্রান্ত ফ্রাস্ট্রেশন আপনাদের এমনিই কমে যাবে! সুখী হোন, অন্যকে হতে দিন!

এদিকে তিন বছর আগে নাসিরের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্কের ইতি ঘটলেও এই ক্রিকেটারের বর্তমান অবস্থা দেখে দুঃখ প্রকাশ করে সুবাহ লিখেছেন, ‘সেদিন যদি তুমি একটাবার আমার কাছে চলে এসে সবকিছু ঠিক করে নিতে, তাহলে হয়তো আজ তামিমার মতো দুই বাচ্চার মায়ের কাছে তোমার ধরা খেতে হতো না! আর ধরা খেয়ে এইভাবে কোর্টে কোর্টে টাকা খরচ করে জামিন নিতে হতো না। তুমি মুখে যতই হাসো, কিন্তু তোমাকে দেখলেই আমি বুঝতে পারি তুমি ভালো নেই। তোমাকে এভাবে অপমানিত হতে দেখে আমার খুব খারাপ লাগছে।

এখনও তোমার জন্য তোমার নাম জড়িয়ে আমাকে অনেকেই কমেন্ট করে তোমার নাম লিখে। অথচ, তুমি এখন অন্য কাউকে নিয়ে আছো! তোমার সঙ্গে যত কিছুই হোক না, একদিনের জন্য হলেও তো তোমাকে ভালোবেসেছিলাম। তাই যখন দেখি তোমার ক্যারিয়ার নিয়ে তোমার চিন্তাভাবনা নেই, উল্টো এইসব নিয়ে দৌড়াচ্ছ, তা দেখে খুবই দুঃখ পাই।

নাসিরের উদ্দেশ্যে নিজের বিয়ে প্রসঙ্গে সুবাহ জানিয়েছিলেন, ‘হয়তো দু-তিন বছরের মধ্যে বিয়ে করে ফেলব আর অবশ্যই তোমার মতো আমার হাজব্যান্ড হবে না। তোমার থেকে অবশ্যই ভালোই হবে হয়তো টাকা কম থাকতে পারে তার! আমার জন্য তুমি দোয়া করো। তোমার জন্য শুভকামনা রইল। আশা করি সবকিছু বাদ দিয়ে আবার নতুন করে জাতীয় দলে ফিরে আসবে। ভালো থেকো সবসময়।

প্রসঙ্গত, নাসির-সুবাহর সম্পর্ক নিয়ে কম সমালোচনা ও ট্রল হয়নি। সেই ঘটনার পর ব্যাপক পরিচিত পান সুবাহ। সিনেমায় গান করতে এসে নায়িকা হয়ে গিয়েছেন। রীতিমতো চারটি ছবিতে অভিনয়ও করে ফেলেছেন। যদিও কোনোটিই এখনও মুক্তি পায়নি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!