ভয়ভীতি প্রদর্শন করে সম্পত্তি হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে সংবাদ সম্মেলন||সত্যবয়ান

ভয়ভীতি প্রদর্শন করে সম্পত্তি হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ মিথ্যা দাবি করে সংবাদ সম্মেলন||সত্যবয়ান

স্টাফ রিপোর্টার||শেরপুরে মো. রুদ্র মিয়া (১৭) নামে পিতৃহারা এক এসএসসি পরীক্ষার্থীকে ভয়ভীতি দেখিয়ে তার নামে থাকা সম্পত্তি হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগ মিথ্যা দাবি করেছেন তার দাদি জয়গুণ বেগম ও ফুফু শিল্পী বেগম। ২১ সেপ্টেম্বর বুধবার দুপুরে শহরের মাধবপুরস্থ শেরপুর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে আয়োজিত এ সংবাদ সম্মেলনে ওই দাবি করেন তারা।
লিখিত বক্তব্যে শিল্পী বেগম দাবি করেন, শেরপুর শহরের নাগপাড়া এলাকায় এক পারিবারিক বিরোধের ঘটনায় সংঘর্ষে মারা যান তার বড়ভাই নবীকুল ইসলাম। মারা যাওয়ার সময় নবীকুল দুই বছর বয়সী ছেলে রুদ্রকে রেখে যান। নবীকুল মারা যাওয়ার ৬ মাসের মাথায় তার স্ত্রী সূর্য বেগম রুদ্রকে রেখে অন্যত্র বিয়ে করেন। এরপর থেকে রুদ্র তার ফুফু ও দাদির কাছে বড় হতে থাকে। এরপর থেকে তার ভরণপোষণ, পড়াশোনাসহ সকল খরচ বহন করেন দাদি, চাচা ও ফুফুরা। রুদ্রর ভবিষ্যতের জন্য তার নামে সাড়ে ১৯ শতক জমিও লিখে দেন তার দাদা। কিন্তু রুদ্রর মা, নানা-নানী বা মামারা তাকে কোন প্রকার সহযোগিতা করেননি বা খোঁজ-খবরও নেননি। রুদ্র বড় হওয়ার পর তার শারীরিক সমস্যার জন্য চিকিৎসকের পরামর্শে বিয়ে করানো হয়। কিন্তু কিছুদিন পর তার নানী মামু বেগমসহ মা ও মামারা মিলে রুদ্রকে দিয়ে সু-কৌশলে জমি বিক্রি করে টাকা আত্মসাতের পায়তাঁরা শুরু করে। এরই অংশ হিসেবে গত ১৮ সেপ্টেম্বর শেরপুর প্রেসক্লাবে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলে তাকে দিয়ে সংবাদ সম্মেলন করানো হয়। সংবাদ এসব মিথ্যা ও ভিত্তিহীন অভিযোগ তোলায় তার প্রতিবাদ জানিয়ে শিল্পী বেগম বলেন, এসব অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা। তার জমিজমা বহাল তবিয়তেই আছে। কেউ বিক্রি করতে চায়নি। সে ১৫দিন আগে নানীর বাড়ি চলে গিয়ে তাদের প্ররোচনায় এসব কথা বলছে। তার থাকার জন্য দাদী ঘরও ছেড়ে দিতে চেয়েছেন। কিন্তু সে মা ও নানীর প্ররোচনায় এখানে এখন থাকতে চায় না। ১৫ লক্ষ টাকার বিষয়ে তারা বলেন, তার মা অন্যত্র বিয়ে করেছে, আমরাই তাকে লালন-পালন করেছি। এতে তো অনেক খরচ হয়েছে। তখন তো কেউ খোঁজ নেয়নি।
তিনি আরও বলেন, গতকাল মঙ্গলবার রাতে রুদ্র তার মা সূর্য বেগম, নানী মামু বেগমসহ কয়েকজনকে নিয়ে বাড়িতে এসে তার দাদী জয়গুণ বেগমকে মারধর করে বাড়িতে থাকা আড়াই লক্ষ টাকা ও স্বর্ণালঙ্কার ছিনিয়ে নিয়ে গেছে।
উল্লেখ্য, গত ১৮ সেপ্টেম্বর ভয়ভীতি দেখিয়ে নিজ নামে থাকা সম্পত্তি হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগে সংবাদ সম্মেলন করেন মো. রুদ্র মিয়া নামে পিতৃহারা এক এসএসসি পরীক্ষার্থী। এছাড়া নিরাপত্তাহীনতার কারণে চলতি এসএসসি পরীক্ষাতেও অংশ না নিতে পারার অভিযোগ করেন তিনি।

Leave a Reply

Your email address will not be published.