শেরপুরে থাপ্পড় খেয়ে স্বামীর আত্মহত্যা ॥স্ত্রীর সাজা

শেরপুরে থাপ্পড় খেয়ে স্বামীর আত্মহত্যা ॥স্ত্রীর সাজা

স্টাফ রিপোর্টার: শেরপুর জেলার শ্রীবরদী উপজেলার রাণীশিমুল ইউনিয়নে স্বামী সাইফুল ইসলামকে আত্মহত্যার প্ররোচনার মামলায় লতা বেগম (৩৫) নামে এক গৃহ বধূকে ৩ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে।

১১ অক্টোবর মঙ্গলবার দুপুরে শেরপুরের চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এসএম হুমায়ুন কবীর আসামির উপস্থিতিতে ওই রায় ঘোষণা করেন। রায়ে একইসাথে লতা বেগমকে ৫ হাজার টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে আরও এক মাসের বিনাশ্রম কারাদণ্ড দেয়া হয়েছে। লতা বেগম শ্রীবরদী উপজেলার রাণীশিমুল ইউনিয়নের মৃত সাইফুল ইসলামের স্ত্রী ও ৩ সন্তানের জননী। অপরদিকে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় মামলার অপর ৫ আসামিকে খালাস দেয়া হয়েছে।

রায়ের বিষয়টি সত্যতা নিশ্চিত করে আদালতের এপিপি এ্যাডভোকেট সুব্রত কুমার দে ভানু জানান, ২০১৬ সালের ৩১ আগস্ট রাত ৮টার দিকে পারিবারিক বিষয়াদি নিয়ে ঝগড়াঝাটির এক পর্যায়ে পিতার বাড়ির লোকজনদের সামনেই স্বামী সাইফুল ইসলামের গালে থাপ্পড় মারেন গৃহবধূ লতা বেগম। একইসাথে তাকে কিলঘুষিসহ তির্যক ভাষায় তিরস্কার করে স্ত্রী লতা বেগম। ওই ঘটনায় মনের রাগে-ক্ষোভে-দুঃখে সেদিন রাতেই স্বামী সাইফুল ইসলাম নিজ বাড়িতে বিষপানে আত্মহত্যা করে।

পরে স্বামী সাইফুল ইসলামের মা সাজেদা খাতুন বাদী হয়ে ওই বছরের ৮ সেপ্টেম্বর লতা বেগমসহ ৬ জনকে আসামি করে আদালতে মামলা দায়ের করেন। পরে ২০১৭ সালের ১২ সেপ্টেম্বর দীর্ঘ তদন্ত শেষে আদালতে ৬ জনের বিরুদ্ধেই আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে অভিযোগপত্র দাখিল করেন সিআইডির তৎকালীন এসআই মনিরুল আলম ভুইয়া। বিচারিক পর্যায়ে বাদী, চিকিৎসক ও তদন্ত কর্মকর্তাসহ ৭ জন সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ করা হয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published.